Composite Gas Cylinder – এইবার গ্যাস নিতে হলে দিতে হবে অতিরিক্ত ৮০০ টাকা, মধ্যবিত্তের মাথায় হাত।

গ্যাসের সিলিন্ডারের খরচ আগের থেকে এক ধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে গেল। প্রতি ঘরে এইবার আসতে চলেছে Composite Gas Cylinder. ৮০০ টাকা গ্যাসের সিলিন্ডারের দাম বাড়লো বলে খবর রটেছে সমাজ মাধ্যমে। এত টাকা যদি গ্যাসের দাম বেড়ে যায় সে ক্ষেত্রে মাথায় হাত পড়বে ভারতবর্ষের সাধারণ মানুষের। কিভাবে তারা এত টাকা দিয়ে গ্যাসের সিলিন্ডার কিনবে। এবার আসা যাক এই ঘটনার পুরো বিস্তারিত তথ্যে। আপনি যদি জেনে থাকেন যে গ্যাসের দাম ৮০০ টাকা বাড়ছে তাহলে কিন্তু এই তথ্যটি ভুল। গ্যাসের সিলিন্ডারের জন্য ৮০০ টাকা দেওয়া ঘটনাটি একদম অন্য।

Composite Gas Cylinder

বাজারে এখন লোহার সিলিন্ডারের বদলে আসতে চলেছে অন্য এক ধরনের সিলিন্ডার। এখন যে গ্যাস সিলিন্ডারটি বাজারে আসছে সেটি হালকা ফাইবারের কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডার। লোহার মতো এটি ভারী নয়। এই কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডারের ডিপোজিট ফি হল ৩০০০ টাকা। আগে গ্যাসের কানেকশন নেওয়ার সময় যেহেতু গ্রাহকরা ২২০০ টাকা জমা দিয়েছেন সেহেতু তাদের এখন ৮০০ টাকা দিলেই কমপোজিট গ্যাস সিলিন্ডার তারা পেয়ে যাবেন।

তবে যারা নতুন করে গ্যাসের কানেকশন নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের কিন্তু ৩০০০ টাকা ডিপোজিট ফি হিসেবে জমা দিতে হবে। এবার লোহার গ্যাস সিলিন্ডার জমা দিতে হবে গ্যাসের ডিলার এর কাছে। আর এই লোহার গ্যাস সিলিন্ডারের বদলে গ্রাহকরা পেয়ে যাবেন কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডার (Composite Gas Cylinder). চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডারের সুবিধা কি কি রয়েছে-

গ্যাস সিলিন্ডারের ভর্তুকি বন্ধ করবে কেন্দ্র!! দ্রুত লিংক করুন আধার- গ্যাস।

১) লোহার সিলিন্ডার অত্যন্ত ভারী হওয়ায় সেটাকে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে নিয়ে যেতে খুব অসুবিধা মধ্যে পড়তে হত গ্রাহকদের। এই Composite Gas Cylinder ফাইবারের তৈরি হওয়ায় সেটি অত্যন্ত হালকা ওজনের হয় তাই এই গ্যাস সিলিন্ডারকে সহজেই এক স্থান থেকে অন্য স্থানে নিয়ে যাওয়া যেতে পারে।

২) অপরদিকে লোহার তৈরি গ্যাস সিলিন্ডারকে মেঝেতে রাখলে সিলিন্ডারের মরচের দাগ মেঝেতে লেগে যায়। কিন্তু কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডার (Composite Gas Cylinder) ফাইবার হওয়ায় এতে মরচে ধরার সম্ভাবনাও থাকে না এবং মেঝেতে দাগ পড়ার কোনো প্রশ্নই আসে না।

৩) গ্যাস সিলিন্ডার লোহার হাওয়ায় গ্যাস কতটা আছে তা বোঝা সম্ভব হয়না। কিন্তু কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডারে আপনি সহজেই দেখতে পাবেন যে আপনার গ্যাস সিলিন্ডারে কতটা গ্যাস রয়েছে। সেই অবস্থা বুঝে আপনি পরবর্তী গ্যাস বুক করতে পারবেন।

জনগনের সুবিধার্থে MyScheme Portal চালু করলো সরকার।

৪) লোহার গ্যাস সিলিন্ডার যদি বাস্ট করে সেক্ষেত্রে ক্ষয়ক্ষতির মাত্রা প্রচুর বড় আকার ধারণ করতে পারে। কিন্তু কম্পোজিট গ্যাস সিলিন্ডার (Composite Gas Cylinder) বাস্ট করলে ক্ষয়ক্ষতির মাত্রা অনেকটাই কম হয়। এমনকি এই নতুন ধরনের সিলিন্ডারের ক্ষেত্রে প্রাণহানির সম্ভাবনা থাকবে না বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

Leave a Comment