Government Scheme Pension 2024: দেশবাসীকে ৫০০০ টাকা করে দিচ্ছে মোদি সরকার। চাকরি না করেও পেনশন পাবেন। কিভাবে আবেদন জানাবেন? জেনে নিন

কেন্দ্রীয় সরকার ভারতবাসীর জন্য দ্বিগুণ লাভে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্প ( Government Scheme Pension ) এনে হাজির করেছে। এই সমস্ত প্রকল্প দেশবাসীকে লাভের মুখ দেখিয়েছে। বিগত কয়েক বছরে যেসব প্রকল্প ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম একটি প্রকল্প (Government Scheme Pension ) সম্পর্কে আজকের প্রতিবেদনে আলোচনা করব। সংশ্লিষ্ট প্রকল্পটি কেন্দ্রীয় সরকার দেশবাসীকে প্রতিমাসে পেনশন দেওয়ার জন্য আরম্ভ করেছে।

অল্প কয়েক দিনের মধ্যেই এই প্রকল্প চারিদিকে হইচই ফেলে দিয়েছে (Government Scheme Pension)। বহু মানুষ এই প্রকল্পে (Central Government Scheme Pension ) বিনিয়োগ করেছেন। বিপুল লাভ দেওয়া এই সরকারি প্রকল্প মাত্র ৭ টাকা বিনিয়োগ করলেই রিটার্ন দেয় ৫০০০ টাকা। অবাক হচ্ছেন? চলুন তবে সরকারি প্রকল্পটি (Central Government Scheme Pension ) সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাক।

Central Government Scheme Pension 2024

বিগত কয়েক মাস ধরে ভারত ভোটযুদ্ধে ব্যস্ত ছিল। অবশেষে গত ৪ জুলাই নির্বাচনের রেজাল্ট আউট হওয়ার পর শরিকদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী পদে তৃতীয়বারের জন্য আসীন হয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। তিনি এর আগে ভারতবাসীর জন্য বেশ কিছু প্রকল্প চালু করেছিলেন। সমাজে দরিদ্র মানুষের জন্য এই প্রকল্পগুলি অত্যন্ত সাহায্যের হয়েছে।

কৃষক থেকে শ্রমিক, ছাত্র-ছাত্রী থেকে সরকারি কর্মী, মহিলাদের জন্যেও কেন্দ্রীয় সরকার একগুচ্ছ প্রকল্পের সূচনা করেছেন। এ সকল প্রকল্প আজও ভারতীয় সমাজে জারি রয়েছে। জনতা চাইলেই প্রকল্পে আবেদন জমা করতে পারেন। এই প্রতিবেদনে আমরা সরকারের একটি পেনশন স্কিম সম্পর্কে আলোচনা করব। অত্যন্ত লাভজনক এই প্রকল্পে আবেদন জমা করলে বিপুল লভ্যাংশ পাবেন।

আমাদের উপার্জনের টাকা যাতে দ্বিগুণ হয় তার জন্য মানুষ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করে। পোস্ট অফিসের বিভিন্ন প্রকল্প, ফিক্সড ডিপোজিট স্কিম সর্বত্র টাকা ইনভেস্ট করে সেই অংকটা বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে থাকে। কিছু প্রকল্প সমাজে পরিচিত এবং জনপ্রিয় হলেও কিছু বিনিয়োগ প্রকল্প আছে যার বিষয় সাধারণ মানুষ খুব একটা জানেন না। কিন্তু এইসব প্রকল্প অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই দ্বিগুনের দ্বিগুণ রিটার্ন দেয়।

কেন্দ্রীয় সরকার এরকম প্রকল্প সূচনা করেছে বেশ কয়েক বছর হল। ইতোমধ্যে প্রচুর মানুষ সংশ্লিষ্ট প্রকল্পে বিনিয়োগ করেছেন। শুধুমাত্র ব্যাপক রিটার্ন দেওয়া নয়, এই সরকারি প্রকল্প সাধারণ মানুষকে প্রত্যেক মাসে পেনশন দেয়। সরকারি ক্ষেত্র ছাড়া অন্যান্য কর্মক্ষেত্রে যুক্ত ব্যক্তিরা সাধারণত ৬০ বছর পর পেনশন পাননা। সেই সকল মানুষদের জন্য সরকার সূচনা করেছে ‘অটল পেনশন যোজনা’ (APY) স্কিম।

Atal Pension Yojana Scheme 2024

কেন্দ্রীয় সরকারের জনপ্রিয় প্রকল্প অটল পেনশন যোজনা (Atal Pension Yojana)। এই প্রকল্পটি সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষের কাছেই উপকৃত। সরকারের এই প্রকল্প নিশ্চিত রিটার্নের গ্যারান্টি দেয়। অল্প সময়ের মধ্যে দ্বিগুণ হারে রিটার্ন পেতে এই প্রকল্পের জুড়ি মেলা ভার। যদি কোনো ব্যক্তি অবসর জীবন সুনিশ্চিতকরণের উদ্দেশ্যে থাকেন, অবসরে আয়ের প্রবাহ বজায় রাখতে চান, তাহলে আজই ‘অটল পেনশন যোজনায়’ নাম নথিভুক্ত করুন।

আজ থেকে বিনিয়োগ শুরু করলে যখন আপনার অবসর জীবন আসবে, তখন প্রত্যেক মাসে আপনি নিশ্চিত টাকা পাবেন। শুধু তাই নয়, এর পাশাপাশি মিলবে একাধিক সুযোগ -সুবিধা।আর সে টাকা দেবে স্বয়ং সরকার। ভাবছেন সরকারের দুর্দান্ত প্রকল্পে নাম কিভাবে নথিভুক্ত করবেন? তাহলে এই সম্পূর্ণ প্রতিবেদন আপনাকে পড়ে নিতে হবে।

Atal Pension Yojana Eligibility 2024

অন্যান্য সরকারি প্রকল্পের মতো ‘অটল পেনশন যোজনা’ প্রকল্পটির বেশ কিছু নিয়মাবলী রয়েছে। এইসব নিয়ম মেনে তবেই প্রকল্পের আবেদন জমা করা যাবে। কোন কোন নিয়ম রয়েছে? করা স্কিমে আবেদন করতে পারবেন? আসুন এ বিষয়ে জেনে নেওয়া যাক।

  • অটল পেনশন যোজনায় আবেদনকারীকে ভারতের স্থায়ী নাগরিক হতে হবে। ‌
  • কোনো সরকারি কর্মী অটল পেনশন যোজনায় আবেদন জানাতে পারবেন না। দেশের বেসরকারি সংস্থায় কর্মরতরা, অন্যান্য পেশার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা এই প্রকল্পের আবেদনের জন্য উপযুক্ত নন।
  • এই প্রকল্পের বিনিয়োগকারী ব্যক্তির বার্ষিক আয় হতে হবে আয়কর প্রদানকারী সীমার নিম্নে। যে সকল ব্যক্তিদের উপার্জনের উপর ইনকাম ট্যাক্স দিতে হয়, তাঁরা কিন্তু এই প্রকল্পে বিনিয়োগ করার সুযোগ পাবেন না।
  • অটল পেনশন যোজনায় বিনিয়োগকারীর বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে।
  • এই প্রকল্পে আপনি যে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করবেন, তার সঙ্গে আধার লিঙ্ক থাকতে হবে।
  • অটল পেনশন যোজনায় আবেদন করার জন্য, প্রকল্পে বিনিয়োগ করার জন্য আবেদনকারীর বৈধ আধার কার্ড, প্যান কার্ড, ও অন্যান্য বৈধ ডকুমেন্ট থাকতে হবে। ‌
  • প্রধানমন্ত্রীর অটল পেনশন যোজনায় যদি আপনি বিনিয়োগ করেন, তাহলে মনে রাখবেন আপনাকে নূন্যতম ২০ বছরের জন্য টাকা জমাতে হবে। তবেই আপনি মাসে মাসে পেনশনের সুবিধা পাবেন। ‌

Atal Pension Yojana Benifits

কেন্দ্রীয় সরকারের অটল পেনশন যোজনা স্কিমে বিনিয়োগ করলে প্রচুর সুযোগ সুবিধা মিলবে। কি কি সুবিধা পাবেন? আসুন জেনে নেওয়া যাক।

  • সরকারের এই প্রকল্প প্রতিদিন মাত্র ৭ টাকা বিনিয়োগ করলে মাসে ৫০০০ টাকার নিশ্চিত রিটার্ন দেয়।
  • আবেদনকারী মাসে সর্বনিম্ন ৪২ টাকা থেকে ১৪৫৪ টাকা অবধি বিনিয়োগ করতে পারেন। প্রকল্পের আবেদনকারী যদি ১৮ বছর বয়সী হন তাহলে প্রত্যেক মাসে তাঁকে মাত্র ২১০ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। অর্থাৎ হিসেব অনুসারে প্রতিদিন ৭ টাকা করে। সুবিধাভোগীর বয়স ৬০ বছর হলেই তিনি মাসে মাসে ৫০০০ টাকা পাবেন।
  • অল্প সময়ের মধ্যেই এই প্রকল্প বিপুল রিটার্ন দেয়। আপনি কত টাকা মাসে রিটার্ন চান, সেটা নির্ধারণ করতে পারবেন আপনি নিজেই।
  • অটল পেনশন যোজনা প্রকল্পের বিনিয়োগকারীরা আয় কর প্রদানের ক্ষেত্রে 2 লক্ষ টাকার মতো ছাড় পেতে পারেন।
  • এই প্রকল্পের বিনিয়োগকারী প্রত্যেক মাসে ১০০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকার পেনশন পান। ৬০ বছর বয়স হলে সরাসরি ব্যাংক একাউন্টে চলে আসবে টাকা।

Atal Pension Yojana Application

আপনিও যদি কেন্দ্রীয় সরকারের অটল পেনশন যোজনায় (APY) টাকা বিনিয়োগ করতে চান, তাহলে আপনার নিকটবর্তী ব্যাংকে চলে যাবেন। নিজস্ব প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলি নিয়ে ব্যাংকে গিয়ে ফর্ম পূরণ করুন। যে যে ডকুমেন্ট চাওয়া হবে সেগুলি জমা দিন। তাহলেই আপনার আবেদন নথিভুক্ত হবে। এবার মাসে মাসে টাকা জমাতে থাকুন। আর ৬০ বছর বয়স হতেই প্রত্যেক মাসে নিশ্চিত রিটার্ন পান।