কৃষক বন্ধু প্রকল্প নিয়ে উঠে এলো গুরুত্বপূর্ণ আপডেট। জেনে নিন এখনই।

পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী কৃষকদের আর্থিকভাবে সহায়তা করার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের তরফে বিভিন্ন ধরনের প্রকল্প কার্যকর করা হয়েছে। কৃষকদের জন্য কার্যকরী এই সমস্ত প্রকল্পগুলির মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য একটি প্রকল্প হল কৃষক বন্ধু প্রকল্প। সমগ্র রাজ্যের অধিকাংশ কৃষকই কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আওতায় অনুদানের টাকা পেয়ে থাকেন। আর তাই কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অনুদানের টাকা কবে পাওয়া যাবে তা নিয়ে রাজ্যের কৃষকদের মধ্যে প্রশ্নের অন্ত নেই। এমনকি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকে গেলেও অধিকাংশ কৃষকই বুঝতে পারেন না তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা ট্রান্সফার করা হয়েছে কিনা। আর তাই আজকের এই পোস্টে আমরা এই সমস্ত সমস্যার সমাধান নিয়ে হাজির হয়েছি। আজ্ঞে হ্যাঁ, আজকের এই বিশেষ পোস্টে আমরা কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা কবে পাওয়া যাবে, কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা আপনার অ্যাকাউন্টে ঢুকেছে কিনা তা বুঝবেন কি করে এই সমস্ত তথ্য নিয়ে আমরা আলোচনা করতে চলেছি।

কৃষক বন্ধু প্রকল্প কি?

কৃষকরা যাতে কৃষিক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় যেকোনো রকম যন্ত্র থেকে শুরু করে রাসায়নিক সার, কীটনাশক কেনার জন্য ঋণগ্রস্ত না হয়ে পড়ে তার জন্যই রাজ্য সরকারের তরফে কৃষক বন্ধু প্রকল্প কার্যকর করা হয়েছে। কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অধীনে কৃষকরা বছরে ২ বার অর্থাৎ খারিফ মরশুমে এবং রবি মরশুমে টাকা পেয়ে থাকেন। এই প্রকল্পের আওতায় জমির পরিমাণের ওপর ভিত্তি করে কৃষকরা ১ বছরে সর্বোচ্চ ৪ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত পেতে পারেন। যদিও রাজ্য সরকারের অন্যান্য প্রকল্পের মতোই এই প্রকল্পের আওতাধীন কৃষকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে সরাসরি কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অনুদানের টাকা ট্রান্সফার করা হয়ে থাকে। তবে এখানেই শেষ নয়, কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সুবিধাভোগী ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী যেকোনো কৃষক মারা গেলে রাজ্য সরকারের তরফে উক্ত কৃষকের পরিবারের সদস্যদের অথবা আইনসম্মত উত্তরাধিকারীকে সর্বোচ্চ ২ লক্ষ টাকার অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। কৃষক বন্ধু প্রকল্পের এই বিশেষ সুবিধাটি কৃষক বন্ধু ডেথ বেনিফিট নামে পরিচিত।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আওতায় অনুদানের টাকা কবে পাওয়া যাবে?

২০২৩ সালের শুরুতেই সমগ্র রাজ্যের কৃষকদের উদ্দেশ্যে জানানো হয়েছিল যে, কৃষক বন্ধু প্রকল্পের খারিফ মৌসুমের অনুদান দেওয়ার প্রক্রিয়াটি চলতি বছরের অর্থাৎ ২০২৩ সালের মে থেকে জুন মাসের মধ্যেই সম্পন্ন করা হবে। পঞ্চায়েত ভোটকে নজরে রেখেই রাজ্য সরকারের তরফে এরূপ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল বলেই জানা গিয়েছে। তবে মে মাস শুরু হওয়ার আগেই নবান্নের এক প্রশাসনিক বৈঠকে কৃষি দপ্তরের তরফে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আওতায় অনুদান দেওয়ার প্রক্রিয়া অফিশিয়ালভাবে শুরু করা হয়েছিল। ২৬ শে এপ্রিল তারিখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে পশ্চিমবঙ্গের কৃষকদের কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আওতায় খারিফ মরশুমের অনুদান দেওয়ার প্রক্রিয়া কার্যকর করা হয়েছিল। এখনো পর্যন্ত বহু কৃষক এই প্রকল্পের আওতায় অনুদান পেয়ে গিয়েছেন বলেই জানা গিয়েছে।

তবে রাজ্যব্যাপী কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আওতাধীন সমস্ত কৃষককে একই সাথে একই দিনে কৃষি দপ্তরের তরফে প্রকল্পের আওতায় অনুদান দেওয়ার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। আর তাই ধীরে ধীরে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সুবিধাভোগী সমস্ত কৃষকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা পাঠানো হচ্ছে। সুতরাং আপনিও যদি এখনও পর্যন্ত এই প্রকল্পের আওতায় অনুদানের টাকা না পেয়ে থাকেন তবে চিন্তার কোন কারণ নেই। আপনার ট্রানজেকশন স্ট্যাটাসে যদি অ্যাকাউন্ট ভ্যালিড লেখা থাকে তবে আপনিও খুব শীঘ্রই এই প্রকল্পের আওতায় টাকা পেয়ে যাবেন। তবে আপনার ট্রানজেকশন স্ট্যাটাসে যদি ADA Uploaded কিংবা DDA Approved লেখা থাকে তবে আপনার ট্রানসেকশন স্ট্যাটাস পরিবর্তিত হয়ে অ্যাকাউন্ট ভ্যালিড হওয়ার পর আপনি এই প্রকল্পের আওতায় অনুদানের টাকা পাবেন।

আরও পড়ুন:- পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে ১ লক্ষ ২৫ হাজার শূন্যপদে কর্মী নিয়োগ, চাকরিপ্রার্থীদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিলে মুখ্যমন্ত্রী।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আওতায় অনুদানের টাকা পেয়েছেন কিনা তা বুঝবেন কিভাবে?

আপনিও যদি কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সুবিধা পেয়ে থাকেন তবে এই প্রকল্পের আওতায় অনুদানের টাকা পেয়েছেন কিনা তা জানার জন্য দুটি পদ্ধতি রয়েছে, তা হল:

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের স্ট্যাটাস চেক:

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে এই প্রকল্পের স্ট্যাটাস চেক করলেই আপনি জানতে পারবেন আপনার অ্যাকাউন্টে এই প্রকল্পের অনুদানের টাকা ঢুকেছে কিনা। এর জন্য আপনাকে প্রথমেই কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অফিসার ওয়েবসাইট https://krishakbandhu.net/ -এ যেতে হবে। এরপর হোমপেজে থাকা অপশনগুলির মধ্যে থেকে আপনাকে নথিভুক্ত কৃষকের তথ্য অপশনটি নির্বাচন করে নিতে হবে। এরপর আপনার সামনে যে নতুন পেজটি আসবে তাতে আপনাকে আপনার ভোটার আইডিটি সঠিকভাবে লিখতে হবে এবং Search অপশনে ক্লিক করতে হবে। পরবর্তীতে আপনার সামনে যে পেজটি আসবে তাতে আপনি আপনার আধার নম্বর, কৃষক বন্ধু আইডি থেকে শুরু করে কৃষক বন্ধু প্রকল্প সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য দেখতে পারবেন। উক্ত পেজের ট্রানজাকশন স্ট্যাটাসের ঘরে যদি Transaction Successfully লেখা থাকে তবে আপনার একাউন্টে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের অনুদানের টাকা ট্রান্সফার করা হয়ে গিয়েছে।

ব্যাংক একাউন্টের স্টেটমেন্ট চেক:

আপনার অ্যাকাউন্টে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা ঢুকেছে কিনা তা জানার জন্য আপনাকে আপনার ব্যাংক একাউন্টের স্টেটমেন্ট চেক করতে হবে। এর জন্য আপনি আপনার পাস বই আপডেট করাতে পারেন। এছাড়াও আপনি আপনার ফোনে কৃষক বন্ধুর টাকা ক্রেডিট হওয়ার মেসেজ এসেছে কিনা তা দেখার মাধ্যমে জানতে পারবেন আপনার একাউন্টে কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা ট্রান্সফার করা হয়েছে কিনা। এর পাশাপাশি পাসবুক অ্যাপের মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্টের স্টেটমেন্ট চেক করতে পারবেন এবং জেনে নিতে পারবেন কৃষক বন্ধু প্রকল্পের টাকা আপনার একাউন্টে ঢুকেছে কিনা।