Rupashree Scheme – পরিবার পিছু 25 হাজার, কারা পাবেন? কীভাবে পাবেন দেখে নিন।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি পশ্চিমবঙ্গবাসীর কল্যাণের জন্য যে প্রকল্পগুলির উদ্ভাবন ঘটিয়েছেন সেই প্রকল্পগুলি হল রূপশ্রী (Rupashree Scheme), কন্যাশ্রী (Kanyashree), যুবশ্রী (Yuvashree Prakalpa), লক্ষ্মী ভান্ডার (Lokkhir Bhandar) প্রভৃতি। এতদিন দরিদ্র পরিবারের অভিভাবকদের মেয়েদের বিয়ের সময় সর্বস্বান্ত হতে হতো। বিয়ের খরচা এতটাই যে তারা সামলাতে হিমশিম খেয়ে যেতেন। এবার ঐ সমস্ত পরিবারের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে মমতা ব্যানার্জির সরকার। এই প্রকল্পের নাম হল রুপশ্রী প্রকল্প (Rupashree Scheme). চলুন এই রূপশ্রী প্রকল্পের বিস্তারিত তথ্য এবার আলোচনায় আসা যাক।

Rupashree Scheme

দারিদ্র সীমার নিচে বসবাস করা মহিলাদের বিয়ের আগে রাজ্য সরকার এই রূপশ্রী প্রকল্পের টাকা দিয়ে থাকে। প্রকল্পের টাকা হিসেবে রাজ্য সরকার পরিবার পিছু ২৫ হাজার টাকা করে দিয়ে থাকে। তবে এটা মাথায় রাখতে হবে যে মহিলাটির প্রথম বিয়ের আগে এই প্রকল্পের টাকা রাজ্য সরকার দিয়ে থাকে। বিবাহ বিচ্ছিন্ন বা বিধবা বিবাহের ক্ষেত্রে কিন্তু এই প্রকল্পের টাকা দেওয়া হয় না। এবার জেনে নেওয়া যাক এই প্রকল্পের টাকা পেতে গেলে কি কি যোগ্যতা সম্পন্ন করতে হবে।

Rupashree Scheme এ আবেদনের যোগ্যতাঃ
১) রূপশ্রী প্রকল্প পেতে গেলে ওই পরিবারটিকে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। ওই পরিবারটিকে অন্তত পশ্চিমবঙ্গে পাঁচ বছর ধরে বসবাস করে থাকতে হবে।
২) পারিবারিক আয় দেড় লক্ষ টাকার নিচে হতে হবে।

৩) মহিলাটির বয়স ১৮ বছর হতে হবে। যে পাত্রের সঙ্গে বিবাহ হচ্ছে সেই পাত্রটির বয়স অন্তত ২১ বছর হতেই হবে।
৪) রূপসী প্রকল্প পেতে গেলে মহিলাটির নামে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকা বাধ্যতামূলক কারন এই প্রকল্পের টাকা ব্যাংকের মাধ্যমে দেওয়া হয়।
৫) মহিলাটির প্রথম বিয়ের সময় ২৫ হাজার টাকা অনুদান দেবে রাজ্য সরকার। এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে বিধবা বিবাহ বা বিবাহ বিচ্ছিন্ন নারীর বিবাহের ক্ষেত্রে এই টাকা পাবে না।

1লা জানুয়ারি 2024 থেকে রেশনে আর মিলবে না অতিরিক্ত দ্রব্য!! কী বলছেন প্রধানমন্ত্রী?

রুপশ্রী প্রকল্পের আবেদনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টসঃ
এই প্রকল্পে আবেদন করতে গেলে যে গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টসগুলি জমা দিতে হবে সেগুলি হল
১) মহিলাটির আধার আধার কার্ডের কপি।
২) পাত্রের আধার কার্ডের কপি
৩) পারিবারিক আয়ের কপি

৪) মহিলাটির মাধ্যমিকের অ্যাডমিট কার্ডের কপি।
৫) পাত্রের মাধ্যমিকের অ্যাডমিট কার্ডের কপি।
৬) মহিলাটির পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
৭) পাত্রের পাসপোর্ট মাপের ছবি।
৮) বিয়ের স্বঘোষিত প্রমাণপত্র।

জনগনের সুবিধার্থে MyScheme Portal চালু করলো সরকার। কোন সরকারী প্রকল্পটি আপনার জন্য এক ক্লিকেই জানা যাবে।

বিয়ের অন্তত দু মাস আগে নিকটবর্তী বিডিও, এসডিও বা পুরো কমিশনারের অফিসে গিয়ে রুপশ্রী প্রকল্পের আবেদন পত্র জমা দিতে হবে। যদি আবেদন পত্র এবং ডকুমেন্ট সব ঠিকঠাক থাকে তাহলে বিয়ের অন্তত চার থেকে পাঁচ দিন আগে মহিলার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে রূপশ্রী প্রকল্পের জন্য ২৫ হাজার টাকা চলে আসবে।