Recruitment Scam – সুপারিশ পেয়েও হয়নি নিয়োগ! আদালতে মিথ্যা হলফনামা পেশ, পর্ষদ সচিবকে তলব হাইকোর্টের।

শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগের শেষ নেই। নিয়োগ দুর্নীতি (Recruitment Scam) এতটাই গভীরে পৌঁছেছে যে বাড়ে বাড়ে কেঁচো খুঁড়তে গিয়ে কেউটে বেরিয়ে আসছে। বঞ্চিতরা হচ্ছেন আরো বঞ্চিত। ২০২২ সাল থেকে নিয়োগ নিয়ে একের পর এক অভিযোগ উঠে আসছে। বছর পাল্টালেও পাল্টাচ্ছে না চিত্র। গাছ তলার নীচে চাকরির দাবি করে দীর্ঘদিন ধরে ধর্নায় বসে রয়েছে চাকরি প্রার্থীরা।

Recruitment Scam

এমন পরিস্থিতিতে আরো এক যোগ্য প্রার্থী বঞ্চিত হওয়ার খবর সামনে আসছে। এ নিয়ে নতুন করে তোলপাড় শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। তবে এবার প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ নয়, বরং আরো একবার আদালতের কাঠগোড়ায় দাঁড়ালেন স্কুল সার্ভিস কমিশন (School Service Commission). অভিযোগ সুপারিশ দিয়েও নিয়োগ করেনি কমিশন। এই অভিযোগের ভিত্তিতে মিথ্যা হলফনামাও জমা করতে ভোলেনি মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

ঘটনা সামনে আসতেই পর্ষদ সচিবকে তলব করলো কলকাতা হাইকোর্ট। ঠিক কি ঘটেছে? আসলে উমা প্রামানিক নামক এক চাকরি প্রার্থী SSC-র বিরুদ্ধে সুপারিশ দিয়েও নিয়োগ না দেওয়ার অভিযোগ এনেছে (Recruitment Scam). এই অভিযোগের ভিত্তিতে কলকাতা হাইকোর্টে (Kolkata High Court) মামলা করে উমা প্রামানিক। জানা যাচ্ছে, ২০২১ সালের সেপ্টেম্বর নাগাদ স্কুল সার্ভিস কমিশন ওই প্রার্থীকে বাঁকুড়ার শালতোড়া গার্লস স্কুলে যোগ দেওয়ার জন্য সুপারিশ জারি করে।

বদলে যাচ্ছে মেট্রোতে টিকিট কাটার নিয়ম, টোকেন ছেড়ে কিউআর, সমস্যার মুখে যাত্রীরা!

তবে সুপারিশ দিলেও, নিয়োগ দেয়নি মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। তারপরই কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন ওই প্রার্থী। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসুর এজলাসে এই মামলা চলছে। অভিযোগের ভিত্তিতে কলকাতা হাইকোর্ট মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে আদালতে হলফনামা জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। সেই মাফিক আদালতে হলফনামাও জমা করে পর্ষদ। (Recruitment Scam)

তবে এর পরই ঘটে আরো এক চঞ্চল্যকর ঘটনা। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের বিরুদ্ধে মিথ্যা হলফনামা জমা দেওয়ার অভিযোগ এসেছে। এরপরই পর্ষদ সচিবকে তলব করেছে হাইকোর্ট। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সচিব আদালতে একটি হলপনামা দিয়ে জানায়, স্কুল সার্ভিস কমিশন (School Service Commission) ওই চাকরি প্রার্থীর কোনো তথ্য দিচ্ছে না পর্ষদকে।

অন্যদিকে এসএসসি (SSC) যে সুপারিশ দিয়েছে তাও নাকি নিয়ম মেনে হয়নি বলে উল্লেখ করা হলফনামায়। তবে এ বিষয়ে এসএসসি-র আইনজীবি সমস্ত প্রকার প্রমান দিয়ে জানান, তাদের যা করণীয়, তা তারা করেছে। কিন্তু এরপরও কেন নিয়োগ মেলেনি, তা জানে পর্ষদ।

নিয়োগ নিয়ে স্বস্তির রায় জানালো সুপ্রিম কোর্ট! অবশেষে হাসি ফুটেছে চাকরি প্রার্থীদের মুখে।

এসএসসি-র পেশ করা সমস্ত প্রকার প্রমান দেখে বেশ ক্ষুব্ধ হয়েছেন বিচারপতি। কেন আদালতে মিথ্যা হলফনামা পেশ করা হয়েছে? তা জানতে চেয়ে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সচিকে তলব করেছে বিচারপতি। উক্ত হলফনামার স্বপক্ষে কোনো প্রমান দিতে না পারলে, কঠিন শাস্তি পেতে পারেন পর্ষদ সচিব। (Recruitment Scam)

Leave a Comment