Student Week – জানুয়ারিতে “স্টুডেন্ট সপ্তাহ” পালনের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর! কী কী করা হবে?

Student Week: ছাত্র-ছাত্রীরাই আগামী দিনের ভবিষ্যত। আগামীতে দিশা দেখাবে তারাই। তাই ছাত্র-ছাত্রীদের সুবিধার্থে রাজ্য সরকার স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড সহ একাধিক স্কলারশিপ প্রকল্প চালু করেছে। ছাত্র-ছাত্রীদের নতুন ক্লাসে স্বাগত জানাতে এবং তাদেরকে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পৌঁছে দিতে নতুন বছরের ২রা জানুয়ারি থেকে ৭ই জানুয়ারি এক সপ্তাহ ব্যাপী রাজ্য জুড়ে পালিত হবে স্টুডেন্ট উইক (Student Week). রাজ্যের প্রতিটি স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে স্টুডেন্ট সপ্তাহ পালন করা হবে।

Student Week

কোন উদ্দেশ্যে স্টুডেন্ট সপ্তাহ (Student Week) পালিত হবে?
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে শিক্ষা দপ্তর ২০২৪ সালের ২রা জানুয়ারি থেকে ৭ই জানুয়ারি “স্টুডেন্ট সপ্তাহ” পালনের কথা জানিয়েছে। ২০২২ সালে প্রথম এটি শুরু করা হয়েছিল। তবে সে বছর কোভিড ১৯-র কারণে অনলাইনে স্টুডেন্ট ইউক পালিত হয়।

চলতি বছরের প্রথমেও স্কুলে স্কুলে এটি পালিত হয়েছিল। এর পর নতুন বছরের শুরুতেই পালিত হবে স্টুডেন্ট উইক। মূলত স্টুডেন্ট সপ্তাহ পালনের উদ্দেশ্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতন মনোভাব বাড়ানো। স্টুডেন্ট বা পড়ুয়ারা যাতে কলেজমুখী হয় এবং শিক্ষার প্রতি আগ্রহ তৈরী করতে পারে, সেই উদ্দেশ্যেই বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে স্টুডেন্ট সপ্তাহ পালন করা হয়।

কোন কোন কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে স্টুডেন্ট সপ্তাহ পালিত হবে?
আগামী ২০২৪ সালের ২রা জানুয়ারি থেকে ৭ই জানুয়ারি পর্যন্ত এক সপ্তাহব্যাপী রাজ্য জুড়ে স্টুডেন্ট সপ্তাহ (Student Week) পালন করা হবে। বেশ কয়েকটি কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে স্টুডেন্ট সপ্তাহ পালন করা হবে।

প্রথমত, এই কয়েকটি দিন রাজ্যের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত বিভিন্ন সংস্কৃতি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই বিশেষ সপ্তাহ পালন করা হবে। যার মধ্যে থাকবে নাচ, গান, আবৃতি, নাটক, কুইজ সহ বিভিন্ন ধরণের সংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। একই সাথে স্টুডেন্টদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রীর শুভেচ্ছাবার্তা ও পুস্তক বিতরণ করা হবে।

2024 এ শিথিল হল মাধ্যমিক পরিক্ষায় ছুটির নিয়ম, দারুন খুশি শিক্ষক- শিক্ষিকা।

অন্যদিকে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য রাজ্য সরকারের যে সমস্ত প্রকল্প রয়েছে, যেমন স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড স্কিম, স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট-কাম-মিনস স্কলারশিপ ইত্যাদি বিষয়ে শিক্ষার্থীদের অবগত করা। কোন প্রকল্প থেকে ছাত্র-ছাত্রীরা কী সুবিধা পেটে পারে এবং কীভাবে এই প্রকল্পগুলির জন্য আবেদন করতে হবে? সেই সব বিষয়ে স্টুডেন্টদের জানানো হবে।

এছাড়া থাকছে অভিভাবক-শিক্ষক-ছাত্র মিলন সভা কর্মসূচি। এই কর্মসূচির মাধ্যমে অভিভাবকদের স্কুলে আমন্ত্রণ জানানো হবে এবং ছাত্র-ছাত্রীদের ভবিষ্যত নিয়ে অভিভাবকদের সঙ্গে আলোচনা করবেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। উল্লেখ্য, একদিকে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প সম্পর্কে অবগত হওয়ার ফলে ছাত্র-ছাত্রীরা যেমন ক্যারিয়ারের বিষয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনা করতে পারবে।

জানুয়ারী থেকে পশ্চিমবঙ্গের স্কুলে ভর্তির নতুন নিয়ম। শিক্ষা দপ্তরের বিজ্ঞপ্তি।

তেমনই সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সৃজনশীলতার বিকাশ ঘটবে। একই সাথে অভিভাবকদের সাথে শিক্ষকদের মিলন সভা হলে, অভিভাবকরা সন্তানদের পড়াশোনার বিষয়ে আরো সচেতন হবে। তাই মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগ শিক্ষা ক্ষেত্রকে বিকশিত করার একটি নতুন প্রয়াস বলা যেতেই পারে। এতে করে শিক্ষার প্রতি আগ্রহ বাড়বে রাজ্যের লক্ষ লক্ষ পড়ুয়ার।

Leave a Comment